Homeখবরনাঙ্গলকোট পৌরসভা উৎসব মুখর পরিবেশে নির্বাচন-দেখুন ভোটের হিসাব

নাঙ্গলকোট পৌরসভা উৎসব মুখর পরিবেশে নির্বাচন-দেখুন ভোটের হিসাব

নাঙ্গলকোট পৌরসভা নির্বাচন যেন পুরুষ ও মহিলা ভোটারদের চোখে মুখে আত্বতৃপ্তিভরা হাসি। নিজের ভোট ইভিএম এর মাধ্যমে দিতে পেরে অনেকেই মহাখুশি। অনেক দিন পর হলেও নাঙ্গলকোট পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থীদের ফেয়ার নির্বাচনে ভোট দিয়ে বিকাল ৪ টা পর্য্ন্ত অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় থেকে নিজেদের মনোনীত বিজয়ী প্রার্থীকে নিয়ে ঘরে ফিরেছে।

প্রতিটিা কেন্দ্রে বিপুল সংখ্যক ভোটারের উপস্থিতিতে উৎসবমুখর পরিবেশে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) অনেকটা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়। পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ৪৩ জন কাউন্সিলর ও ১১ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে মেয়র পদে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হন সাবেক মেয়র আবদুল মালেক।

নাঙ্গলকোট পৌরসভা নির্বাচন একটা দৃষ্টান্ত

ভোটার উপস্থিতি ছিল প্রাণবন্ত। সকাল ৮টা থেকৈ বিকাল ৪টা পর্য্ন্ত একটানা ভোট গ্রহণ করা হয়। নাঙ্গলকোট পৌরসভা নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসার নিযুক্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লামইয়া সাইফুল সফল  প্রশাসনিক দায়িত্ব প্রতিষ্ঠিত করে দেখিয়েছেন যে, প্রশাসন ঠিক থাকলে নির্বাচনে কোন প্রকার কারচুপি করা যায় না।

নাঙ্গলকোট পৌরসভা কাউন্সিলর পদে ৯টি ওয়ার্ডে বিজয়ীরা 

  • ১নং ওয়ার্ড মোশারফ হোসেন (টেবিল ল্যাম্প) ৫৫১ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মো. হানিফ (পানির বোতল) ৪৫৭ ভোট।
  • ২নং ওয়ার্ড আক্তারুজ্জামান (উটপাখি) ৫১৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আবুল খায়ের (টিউবলাইট) ৪৩০ ভোট।
  • ৩নং ওয়ার্ড জহির উল্লাহ সুমন (পানির বোতল) ১৫৬৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি রেজাউল হক রেজু  (টেবিল ল্যাম্প) ৬৪৭ ভোট।
  • ৪নং ওয়ার্ড শাখাওয়াত হোসেন সুমন (পাঞ্জাবি) ৪৩৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ইমরান হোসেন বাহার (পানির বোতল) ৩৬২ ভোট।
  • ৫নং ওয়ার্ড শেখ রাসেল মজুমদার  (পাঞ্জাবি) ১১৮৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি সেলিম জাহাঙ্গীর (উটপাখি) ৩৭৪ ভোট।
  • ৬নং ওয়ার্ড ছাদেক হোসেন (উটপাখি) ৮৭০ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি রুবেল হোসেন (পাঞ্জাবি) ৬৪১ ভোট।
  • ৭নং ওয়ার্ড জামাল হোসেন সোহাগ (উটপাখি) ৬৮৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মেজবাউল আলম (পানির বোতল) ২৩৮ ভোট।
  • ৮নং ওয়ার্ড শাহ খুরশিদ আলম মজুমদার (টেবিল ল্যাম্প) ৪২১ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি নিজাম উদ্দিন মজুমদার (পানির বোতল) ৩৪২ ভোট।
  • ৯নং ওয়ার্ড আবু জাফর (পানির বোতল) ৫৫৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি মাঈন উদ্দিন ভূঁইয়া (পাঞ্জাবি) ৪৪৫ ভোট।
  • সংরক্ষিত ১,২,৩নং ওয়ার্ড সাবিনা ইয়াসমিন (আনারস) ৩০৪৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি সুফিয়া আক্তার (চশমা) ২১০৫ ভোট।
  • সংরক্ষিত ৪,৫,৬নং ওয়ার্ড ফরিদা আক্তার (টেলিফোন) ১০৮৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি রহিমা খাতুন (জবা ফুল) ৯৫১ ভোট। সংরক্ষিত ৭,৮,৯নং ওয়ার্ড আয়েশা বেগম (চশমা) ১৭১৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী; নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি সালেহা বেগম (আনারস) ১১৭৯ ভোট।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও রিটার্নিং কর্মকর্তা লামইয়া সাইফুল জানান

গত ১১ এপ্রিল নাঙ্গলকোট উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও করোনার কারণে তখন তা স্থগিত করা হয়। নির্বাচনে মেয়র পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আবদুল মালেক নির্বাচিত হন। সোমবার ভোটারদের স্বর্তঃস্ফুর্ত উপস্থিতিতে ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ হওয়ায় তিনি সকলকে ধন্যবাদ জানান।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments